বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ০৬:৩২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
করোনা প্রতিরোধে শিবচরে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন, বাজার ও মোড়ে মোড়ে তল্লাশি চৌকি শিবচরে প্রবেশের সব রাস্তা বন্ধ ঘোষণা, প্রশাসনের কঠোর হুঁশিয়ারি, ছাড়পত্র নিয়ে সুস্থ ৩জনসহ আরো ১জন ফের আইসোলেশনে কালকিনিতে জ্বর ও গলাব্যথা নিয়ে একজনের মৃত্যু হতদরিদ্রদের মাঝে চীফ হুইপের ব্যক্তিগত তহবিলসহ সরকারীভাবে শিবচরে মোট জনসংখ্যার ৩ ভাগের ১ ভাগ খাদ্য সহায়তা প্রদান চিকিৎসকসহ স্বাস্থ কর্মী ও প্রশাসনের মাঝে পিপিই বিতরন করলেন চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপি চীফ হুইপের পক্ষ থেকে শিবচরে বেঁদে পল্লীর হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করোনা সর্তকতায় হোমকোয়ারেইন্টেনে থাকা দুস্থদের পাশে শিবচর সমাজসেবী সংঘ শিবচরে কাদিরপুরে অগ্নিকান্ডে ১০টি বসতঘর পুড়ে ছাই, ৩ ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে ফায়ার সার্ভিস মাদারীপুরে অগ্নিকান্ডে ২ কৃষকের বসতঘরসহ ৫টি পুড়ে ছাই, ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি করোনা প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই পদ্মা সেতুর সর্বশেষ পিয়ারের কাজ শেষ 
ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যোগাযোগে আর এক ধাপ এগিয়ে বাংলাদেশ

ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যোগাযোগে আর এক ধাপ এগিয়ে বাংলাদেশ

শিবচর বুলেটিন ডেস্কঃ ঢাকা থেকে খুলনা (এন-৮) মহাসড়কের যাত্রাবাড়ী-মাওয়া এবং শিবচরের পাঁচ্চর-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রায় ৫৫ কিলোমিটার দৈর্ঘের এই মহাসড়ক দেশের প্রথম আন্তর্জাতিক মানের আধুনিক এক্সপ্রেসওয়ে। বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে প্রকল্পটি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। একইসঙ্গে ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রকল্পের আওতায় খুলনা, বরিশাল ও গোপালগঞ্জ সড়ক জোনে নির্মিত ২৫টি সেতু এবং তৃতীয় কর্ণফুলী সেতু নির্মাণ (সংশোধিত) প্রকল্পের আওতায় তৃতীয় কর্ণফুলী (শাহ আমানত সেতু) সেতুর ছয়লেন বিশিষ্ট আট কিলোমিটার এপ্রোচ সড়কও উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস। এসময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম প্রকল্প বিষয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন তথ্য চিত্র তুলে ধরেন।

এদিকে এক্সপ্রেসওয়ের উদ্বোধন উপলক্ষে মাদারীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে আয়োজিত ভিডিও কনফারেন্সে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ ওয়াহিদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোঃ মাহমুদুল হাসান প্রমুখ। ভিডিও কনফারেন্সে শিবচর থেকে বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দ,প্রতিনিধিরা,নেতা কর্মীরা উপস্থিত হন।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এটি হবে এশিয়ান হাইওয়ের করিডোর-১ এর অংশ। ৮ লেনের এক্সপ্রেসওয়েটি সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের তত্ত্বাবধানে নির্মাণ করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর স্পেশাল ওয়ার্কস অর্গানাইজেশন-এসডব্লিউও (পশ্চিম)। সেনাবাহিনীর এসডব্লিউও-এর তত্ত্বাবধানে নির্দিষ্ট সময়ের আগেই সম্পন্ন হয়েছে দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ের কাজ। এদিকে পদ্মাসেতুর কাজও এখন শেষ পর্যায়ে। স্বপ্নের এ সেতু উদ্বোধনের আগেই খুলে দেওয়া হচ্ছে দেশের প্রথম এই এক্সপ্রেসওয়ে। বর্তমানে এই সড়ক পাড়ি দিতে সময় লাগে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা। তবে পদ্মাসেতু খুলে দেওয়ার পর ৫০ থেকে ৫৫ মিনিটেই পুরো সড়ক পাড়ি দেওয়া সম্ভব হবে। বরিশাল বিভাগের ছয় জেলা, খুলনা বিভাগের দশ এবং ঢাকা বিভাগের ছয় জেলাসহ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২২ টি জেলার মানুষ সরাসরি এই আন্তর্জাতিকমানের এক্সপ্রেসওয়েতে কম সময়ে যাতায়াত করতে পারবেন। হাইওয়েতে আগামী ২০ বছরের জন্য ক্রমবর্ধমান ট্রাফিকের পরিমাণ বিবেচনা করে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে প্রায় ১১ হাজার ৪ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে।

ঢাকা থেকে আসা বরিশালগামী যাত্রী সজিব হোসেন জানান, এক্সপ্রেসওয়েটি উদ্বোধনের পর ঢাকা থেকে মাওয়া বাসযোগে আসলাম। অবিশ্বাস্য ব্যাপার মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে আমাদের বাস মাওয়া ঘাটে এসে পৌছলো। আগে যেখানে প্রায় দেড়ঘন্টা সময় লাগতো সেখানে ১ ঘন্টা সময়ই বেচে গেছে। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।
ভাঙ্গা থেকে শিবচরের উদ্দেশ্যে আসা আরেক যাত্রী মোশাররফ মুন্সী জানান, ভাঙ্গা থেকে মাত্র ২০ মিনিট সময় লাগলো শিবচরের কাঠালবাড়ী ফেরি ঘাটে আসতে। আর রাস্তাটি কত সুন্দর, ভাঙ্গা থেকে কোন স্টপেজেই থামতে হয়নি আমাদের বাসটি।

ভাঙ্গা-শিবচর রুটের বাস চালক হোসেন সরদার বরেন, সড়কটি আসলেই পৃথিবীর মধ্যে অন্যতম একটি সড়ক। ভাঙ্গা থেকে বাস ছেড়ে আসলাম কোথাও এসে বাসটি ধীর গতিতে চালাতে হয়নি। এমনটি চৌরাস্তা, বাজারের কারণেও গাড়ি ধীরগতিতেও চালাতে হয়নি। কারণ বাজার কিংবা চৌরাস্তাগুলো আন্ডার পাসের মাধ্যমে মহাসড়কের নিচ দিয়ে চলে গেছে। লোকাল চলাচলের জন্য আলাদা সড়ক রয়েছে। এ ধরনের সড়ক দেশের সব অঞ্চলে করা হলে সময় ও দূর্ঘটনা একদমই কমে যাবে।

এক্সপ্রেসওয়ের বিষয়ে কাঠালবাড়ী ঘাটের ফল বিক্রেতা সাইদুল বেপারী বলেন, এখন আর কোন সমস্যা নাই। আগে কেউ অসুস্থ হলে পথেই আরো অসুস্থ হয়ে যেত । এখন কম সময়ে ঢাকায় নিরাপদে যেতে পারবো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




themesba-zoom1715152249
© শিবচর বুলেটিন। সর্বসত্ব সংরক্ষিত।
ডিজাইন ও ডেভেলপে Host Web